জাপানে উচ্চশিক্ষা এবং স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ।

শুধুমাত্র ১৬০ ঘণ্টার Japanese Language Course (৩ মাসের কোর্স ফি ১৫,০০০ টাকা) শিখে আপনিও নিতে পারেন জাপান এ উচ্চ শিক্ষা, পড়াশুনা শেষে নিশ্চিত চাকরী, পাঁচ বছর থাকার পর নাগরিকত্ব নিয়ে স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ। IELTS এর প্রয়োজন নাই।
জাপানে আবেদন করার জন্য নূন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা:
এইচএসসি/ডিপ্লোমা বা সমমান, নূন্যতম GPA- 2.5,
অনার্স , মাস্টার্স পাশ অথবা অনার্স / মাস্টার্স এ প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় বর্ষে অধ্যয়্নরত ছাত্র-ছাত্রীরাও আবেদন করিতে পারিবেন।
আবেদন করার জন্য IELTS এর প্রয়োজন নাই।
Study GAP maximum 3 Years Acceptable.
জাপানিজ ভাষার দক্ষতার জন্য নাট টেস্ট/জেএলপিটি এন-ফাইভ অথবা ১৬০ ঘন্টার জাপানিজ ল্যাংগুয়েজ কোর্স করতে হবে।
জাপানে কোন কোন বিষয়ে পড়াশোনা করতে পারবেন?
জাপানের প্রায় ৭৫০ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইঞ্জিয়ারিং, ব্যবসায়, কলা, ডিপ্লোমা সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে ডিপ্লোমা, স্নাতক, স্নাতকোত্তর ও পিএইচডি পর্যায়ে পড়াশোনার সুযোগ রয়েছে।
জাপানে আবেদন করার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রঃ
1) স্টুডেন্ট এর অরজিনাল সার্টিফিকেট, মার্কসীট এবং ট্রান্সক্রিপ্ট।
2) ৬ কপি ছবি, জন্ম নিবন্ধন এবং পাসপোর্ট এর ফটোকপি।
3) Relationship সার্টিফিকেট With Sponsor।
Sponsor Document:
1) আপনার আত্মীয় এর মধ্যে যে কেউ Sponsor হতে পারবে।
2) ৬ মাসের ব্যাংক Statement, ১২ লাখ টাকা থাকতে হবে।)
3) জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন এর ফটোকপি।
জাপানে কিভাবে যাবেন?
শুরুতে জাপানিজ ল্যাংগুয়েজ ইনস্টিটিউটগুলোতে ইন্টারভিউ দিতে হবে। ইন্টারভিউতে পাশ করলে প্রয়োজনীর কাগজ-পত্র জাপান ইমিগ্রেশনে জমা দিতে হবে। ইমিগ্রেশন থেকে ইলিজিবিলিটি লেটার ইস্যু করার পর ১ বছরের টিউশন ফি জমা দিতে হবে। এরপর বাংলাদেশের জাপান এমব্যাসিতে প্রয়োজনীয় কাগজ-পত্র জমা দিয়ে ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। এমব্যাসি সবকিছু দেখে ভিসা ইস্যু করবে।
জাপানে কেন যাবেন?
১. পড়াশুনার মান অনেক ভালো (World Class Education)
২. IELTS লাগে না
৩. জাপানের অর্থনীতি পৃথিবীর মধ্যে তৃতীয় বৃহত্তম
৪. পার্ট টাইম জব পাওয়া খুব সহজ
৫. প্রতি ঘন্টা খন্ডকালীন চাকরী করলে প্রায় 900 Yen থেকে 1,100 Yen আয় করা যায়
৬. সপ্তাহে legally ২৮ ঘন্টা ১ মাসে ১২০ ঘন্টা পার্ট টাইম জব করা যায়
৭. Holiday এর সময় Full Time কাজ করার সুবিধা
৮. পড়াশুনা শেষে ফুলটাইম জব
৯. পাঁচ বছর থাকার পর নাগরিকত্বের নিয়ে স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ
১০. Visa Procedure এবং Admission Procedure অনেক সহজ। ভিসা পাওয়া সহজ
১১. খরচ তুলনামূলক কম (১ বছরের টিউশন ফি ৫ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা)
জাপানে যেতে কত টাকা খরচ হবে?
১. জাপানে কলেজে/বিশ্ববিদ্যালয় এর Application Fee
২. এডুকেশোনাল ডকুমেন্ট এবং অন্যান্য ডকুমেন্টস জাপানীজ ভাষায় অনুবাদ করতে হবে ।
৩. Ministry of justice of Japan এর জন্য সমস্ত ডকুমেন্টস জাপানে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে প্রেরণ করতে হবে।
৪. এক বছরের টিউশণ ফি Pre-VISA পাওয়ার পর। ১ বছরের টিউশন ফি (প্রায় ৫ – ৫.৫০ লক্ষ টাকা) ট্রান্সফার হবে Student – এর নিজের Account থেকে Institute /College এর Account এ.
৫. বাংলাদেশে চার মাস Japanese Language JLPT N5 course
৬.we help you for visa interview preparation.
৭.Steps Education Student দের জাপানে Airport পিকআপ করবে।
৮.Steps Education Student দের জাপানে বাসস্থান এর ব্যবস্থা করে দিবে।
৯.Steps Education Student দের জাপানে Part Time Job এর-ব্যবস্থা করে দিবে ।
১০..Steps Education জাপানে Student দের Bank Account, Health Insurance
করে দিবে।
আমরা কোন প্রকার ফাইল ওপেনিং চার্জ , রেজিস্ট্রেশন চার্জ গ্রহণ করিনা এবং ভিসা পাওয়ার আগ পর্যন্ত আমরা কোন প্রকার সার্ভিস চার্জ গ্রহণ করিনা।
জাপানে পড়াশোনা ও চাকরির বিষয়ে সহযোগিতা করার জন্য বাংলাদেশে ২০১২ সাল থেকে কাজ করছে Steps Education নামের প্রতিষ্ঠানটি। আপনি যদি মনে করেন এ সুযোগ (Study work & Settle in Japan) গ্রহণ করবেন, তাহলে আইজ যোগাযোগ করুন Steps Education এ ।
বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করুন-
Mr Monwar : +8801848389217-18
Hotline : +8801760098188-89

STEPS Education:
Office Addresses:
Uttara Office:
Priyo Prayangon(4th Floor)
Plot-47,Sector-3
Robindro Sharoni,
Dhaka-1230,Bangladesh.
Email: srcounsellor@steps.com.bd



Leave a Reply

Close